বাংলা ছোট স্ট্যাটাস সমগ্র ফেসবুক এর জন্য।

ফেসবুক এর জন্য বাংলা ছোট স্ট্যাটাসঃ হাসির সেরা বাংলা ছোট স্ট্যাটাস

  1.  সেরা বাংলা স্ট্যাটাস
  2. বাংলা ছোট স্ট্যাটাস
  3. হাসির সেরা বাংলা ছোট স্ট্যাটাস
ফেসবুক এ পোস্ট দেওয়ার জন্য অনেকে ছোট ছোট স্ট্যাটাস  খুজে থাকেন। তাদের জন্য আজকের পোস্টে আমরা ৮০ টির বেশি ছোট ছোট বাংলা স্ট্যাটাস  এর কালেকশন দিলাম। সাথে মাঝে মাঝে কিছু ফেসবুক এর ছবিও পেয়ে জেতে পারেন।

"সৃষ্টিকর্তার সাথে তোমার দূরত্বের নামই ডিপ্রেশন।"

- Muahammad Sajib 



ছোট বাংলা স্ট্যাটাস বাংলাদেশ 


আজকে যাকে না পেলে বাঁচব না বলে মনে হচ্ছে, বছর না ঘুরতেই মনে হতে পারে যে, তাকে না ছাড়লে বাঁচব না। ছয় মাস আগেও যে চেহারাটা এক নজর দেখার জন্যে অস্থির হতো মন, এখন সে চেহারাটাই হতে পারে সবচেয়ে অসহ্য দৃশ্য।


রাজ কেউটে তার জাতের সাপটাকেও রেহাই দেয় না, তাকে খায়, তবে পঞ্জিকা দেখে।


ইদানিং আলুর উপর খুব চাপ যাচ্ছে ।


সত্য কথা দিনের মধ্যে ১৪ বার বলন যায়।


আসসালামুয়ালাইকুম,
উনি মুচকি হাসলেন, বললেন, হ্যাঁ ভালো আছি।
আরে বয়রা আমি তোকে সালাম দিসি, কেমন আছিস বলি নাই।


যে থাকে আখি পল্লবে, তার সাথে কেনো দেখা হবে,
নয়নের জলে যার বাস, সে তো রবে নয়নে নয়নে।


যদি সুন্দর একটা মুখ পাইতাম, সদরঘাটের পানের খিলি তারে বানাই খাওয়াইতাম।


আসল প্রেমিকরা মেসির মতো, গোলপোষ্ট ফাকা পেয়েও গোল করে না। কিন্তু ভন্ড প্রেমিকরা নেইমারের মতো পেনাল্টির জন্য কত যে অভিনয় করে।


বাস, ট্রেন বা মেয়েদের পিছনে কখনো ছুটতে যাবি নারে পাগলা, কারন একটা গেলে আরেকটা আসে।


ইসসস!!! আমি যদি ফেসবুক স্ট্যাটাস হতাম তাহলে তুমি আমাকে লাইক করতে !


আবারো, শুন্য থেকে শুরু করতে হবে আমায়।


কেউ যদি তোমারে ইটা মারে, তবে তুমি তারে ফুল দিয়া ঢিলা মারো কিন্তু মনে রাখবা, ফুলের সাথে যেন ফুলের টবটাও থাকে।


আমার হৃদয় সব কথা তোমাকে বলতে ব্যাকুল। কিন্তু আমার বিশাল হৃদয়, সব বলতে গেলে তুমি বোরিং ফিল করবা, তাই বলা হচ্ছে না!!


বেশি কথা মোবাইলে, কান যাবে অকালে।


কোন ব্যক্তি যদি বিশ্ব- চরাচরের সকল নেয়ামত লাভ করে এবং সেজন্য সে আলহামদুলিল্লাহ বলে, তবে বুঝতে হবে যে, সারা বিশ্বের নেয়ামতসমূহ অপেক্ষা তার আলহামদুলিল্লাহ বলা অতি উত্তম।


দয়া করে টিভিতে খেলা দেখার সময় কেউ জোরে ফ্যান চালাবেন না, নেইমার পড়ে যেতে পারে।


তার রুচির সাথে আমার রুচির কেবল একটা মিল রয়েছে, সে ও তেলাপোকা ভয় পায়, আমিও তেলাপোকা ভয় পাই, আর কিছু না।


একটু গভীর ভাবে চিন্তা করলে বুঝা যায়, উদ্দেশ্যহীন মানুষ খুব সহজে পথ ভ্রষ্ট হওয়র সম্ভাবনা নেই।


আজকে আসলে স্কুল লাইফের কথা মনে পড়ছে, ছোটবেলার নির্ভেজাল সব প্রেমের কাহীনি। 


আমরা একবার ও কি ভাবি না যে কি করছি করার পর ভাবি তখন আর কিছু করার নাই।


সমুদ্রের জীবনে যেমন জোয়ার-ভাটা আছে, মানুষের জীবনেও আছে। মানুষের সঙ্গে এই জায়গাতেই সমুদ্রের মিল।


ভীড়ের মাঝে এক মেয়ের ওড়নায় নাকের সর্দি মুছে ফেলেছি এখন খুব ভাল্লাগতাছে


মোটা মেয়েরা শাড়ী পরলে মনে হয় বিরিয়ানির পাতিলে কাপড় পেচাইছে


নিঝুম রাতে কাকে মিস করতেছেন? নাম বলতে হবে না ১ম অক্ষরটা কমেন্টে দিয়ে যান।


দায়িত্ব যখন কাঁধে পড়ে তখন নরম কোমল হাতগুলো-ও শক্ত লোহায় পরিনত হয়।


সবার nickname বলো. আমি বলে দিবো কতজন তোমার প্রেমে ..হাবুডুবু খাচ্ছে

আসেন পরিচিত হই আমি FB খোর আর আপনি,,,,,?


চোখের পাতাটা সবার জন্য ভিজে না যার জন্য ভিজে সে ফিরেও তাকায় না


১০ লাখ রুহিংগা বাংলাদেশে জায়গা পেলো অথচ আমি কারো মনে জায়গা পেলাম না


মন পুড়লে যদি গন্ধ বাহির হতো তাহলে পৃথিবীর এক তৃতীয়াংশ পরিবেশ দূষিত হয়ে যেতো!!


নিজের দোষগুলো স্বীকার করে নেওয়ার অভ্যাস করুন জীবন সুন্দর হবে


হঠাৎ শুনেন যদি আপনার বিয়ে তাহলে আপনি কি করবেন বেশী লিপস্টিক ব্যবহার করলে বুদ্ধি কমে যায়। লিস্টের সুন্দ্রিরা সাবধান ছোট পোলা


মা: রাত জেগে থাকিস কেনো...? আমি: আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে।


২০১৯সালে যদি কারো সাাথে খারাপ ব্যবহার করে থাকি তাহলে দোষ আপনারি ছিল এসে ক্ষমা চেয়ে যাবেন।


পুরো পৃথিবীকে আলোকিত করার জন্য যেমন একটা সূর্য যথেষ্ট ঠিক তেমনি পুরো জীবনটাকে সাজাতে মনের মতো একজন মানুষই যথেষ্ট


সে খোঁজ নেয় নাহ তাই আমিও বিরক্ত করি না!


যাদের গুড মর্নিং বলার মত কেউ নেই, শুধু তাদের কে বলছি, গুড মর্নিং

বাংলা ফেসবুক স্ট্যাটাস পোস্ট ছবি 









বাংলা ইসলামিক স্ট্যাটাস  

বিয়ে করেছেন কিংবা করেননি, সবার জন্যই লিখাটি......

প্রায় দু' বছর আগের কথা। আমি আর ফখরুল ভাই গিয়েছিলাম শ্রদ্ধেয় এক উস্তাদের কাছে। উস্তাদ নসীহা করে বললেন- 'যার যা বদ অভ্যাস আছে, বিয়ের আগেই ছেড়ে দাও। বিয়ের পর ছেড়ে দিবা ভাবছ! পারবা না'। 
.
আসলেই... 
বিয়ের আগে যে সারা দিন মোবাইল নিয়ে পরে থাকেন আর ভাবছেন- পাশে তো কেউ নেই, মোবাইল নিয়ে থাকি। বিয়ে করি... ফেসবুক টেসবুক সব ঝাঁটিয়ে বিদায় করব...।
বিশ্বাস করুন, পারবেন না। হ্যাঁ, কিছু দিন হয়তো পারবেন রঙিন জগতে ডুবে সবকিছু ভুলে থাকতে। তারপর আবার যেই সেই হয়ে যাবে।


প্রিয় ভাই/ বোন! নিজের স্ত্রী/স্বামীকে পাশে রেখে অনলাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় দেওয়া! একজন জীবন-সঙ্গীর জন্য এর চেয়ে বড়ো অপমান আর কী হতে পারে! বুঝে না বুঝেই হয়তো জীবনসঙ্গীকে আমরা অবহেলা করে চলেছি... 


তেমনি কোনো দ্বীনি ভাইয়ের সাথে সাক্ষাৎ লাভের পরও তার সুহবতের নিয়ামতকে কাজে না লাগিয়ে অনলাইনের পড়ে থাকা নিশ্চয় যে কারও জন্য চরম দুর্ভাগ্যের কথা, অসামজিকতাও বটে! ভাইরে, একজন দ্বীনি ভাইয়ের পাশে বসে পাঁচ মিনিট কথা বলা অনলাইনে দু ঘন্টা ইলমি কথা বলা-কওয়ার চেয়ে উত্তম।


কেন? কারণটা বলি- সরাসরি পাঁচ মিনিট কথা আপনার অন্তরে প্রশান্তি এনে দেবে, পক্ষান্তরে ঘন্টার পর ঘন্টা অনলাইনে পরে থাকা আপনার মাঝে শুধু বিষণ্নতাই বাড়াবে।


প্রিয় ভাই/বোন! আমরা কেন বুঝি না, অনলাইন হলো ভার্সচুয়াল জগৎ। ভার্চুয়ালের বিপরীত হচ্ছে রিয়েল লাইফ। ভার্চুয়াল আর রিয়েল এক সরল রেখায় থাকা রেয়ার ব্যাপার। যারা ভার্চুয়াল জগতে নিজেদের বিলীন করে দিয়েছে, বাস্তবিক জগতের সাথে তারা নিজেদেরকে খাপ খাওয়াতে পারবেন না- এটাই তো স্বাবাভিক। যাবজ্জীবন জেল খেটে বের হয়ে আসা ব্যাক্তি কি এত সহজেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে?


বন্দী জীবন থেকে স্বাভাবিক জীবন ফিরতে না পারা কিংবা ভার্চুয়াল লাইফ থেকে রিয়েল লাইফের সাথে মিশতে না পারাই ব্যক্তির মাঝে হতাশা সৃষ্টি করে। এই হেতুর কারণেই আমরা বলি, ভার্চুয়াল জগতের প্রত্যক্ষ প্রভাব হচ্ছে মানুষের মাঝে হতাশা। অফিস থেকে ফিরব, বাচ্চার সাথে খেলব, স্বামী-স্ত্রী-বাবা-মা গল্প গুজব করব... আহ! কী প্রাশান্তি! এর আনন্দই অন্যরকম।

যে যুবক ভাইয়েরা চোখের পর্দা করেন না, পথে ঘাটে এবং জানালার কাচ দিয়ে লাল-নীল প্রজাপতি দেখেন আর ভাবেন, বিয়েটা করি... সাচ্চা মুমিন হয়ে যাব। 


বিশ্বাস করুন, পারবেন না। পারতে হলে তাকওয়া লাগবে। তাকওয়ার প্র‍্যাক্টিস শুরু করতে হয় অনুভূতি জাগ্রত হওয়ার প্রথম দিন থেকেই । না হলে পাপের আগাছায় তাকওয়ার বীজ জন্মে না। বিয়ের আগ থেকেই যদি চোখের পর্দা করতে না পারেন, তবে তো বিয়ের প্রথম কয়েক মাস শুধু নিজের স্ত্রীর মাঝে পৃথিবী দেখবেন। তারপর নিজের বৌ যতই সুন্দর হোক, অন্য বাড়ির কালো বৌয়ের চোখে মুখে মায়া খুঁজে ফিরবেন। 


.
যারা পর্ণোগ্রাফি দেখায় আসক্ত আর হতাশায় মুহ্যমান হয়ে ভাবছেন-নাহ! আমার দ্বারা ফেরা সম্ভব নয়, আমার এই একাকীত্বের লাইফে নীল পর্দা ছাড়া আর কী আছে! বিয়ের পর সব ছেড়ে দিব.....
প্রিয় ভাই/বোন! পারবেন না। যদি ঘুরে দাঁড়াতে হয়, আজই দাঁড়াতে হবে। মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর সময় এখনই। বদ অভ্যাসের ভারে মেরুদন্ড বাঁকা হয়ে গেলে ঘুড়ে দাঁড়ানো, উঠে দাঁড়ানো এত সোজা নয়। প্রয়োজনে উচিৎ রোযা রাখা। গোনাহ করা কোনো সমাধান নয়। গোনাহ থেকে বেঁচে থাকার মাঝেই রয়েছে সমস্ত পেরেশানির মুক্তি।

- Hafij Al Munadi

Powered by Blogger.