মেহেদী ডিজাইন ছবি ও পিকচার ডাউনলোড করুন । Mehedi Design 2021


২০২১ সালের ঈদের মেহেদী ডিজাইন নিয়ে মূল পোস্টে যাওয়ার আগে সাময়িক কিছু কথা।চলে এসেছে আনন্দের উৎসব পবিত্রার উৎসব ঈদ। অন্য যেকোনো ধর্মের যেকোনো উতসবের চাইতে আমাদের ঈদ ভিন্ন। আমরা উতসবে শুধু নিজেদের হাসি আনন্দ না দেখে আসুন চেষ্টা করি অন্যদের মাঝে বিশেষ করে গরিব অভাবিদের মাঝে ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে। এজন্য যা দরকার তা হলো রোজার ঈদ উপলক্ষে বাড়তি খরচ না করে অপচয় না করে বরং কিছু টাকা গরিবদের দিয়ে সাহায্য করা। মনে রাখবেন ঈদুল ফিতর নামটা হচ্ছে ফিতরা দেওয়ার থেকে আর ফিতরা দেওয়ার কারন হলো গরিবদের সাহায্য করা।

তাই আসুন আমরা নামি দামি বিভিন্ন সাজাসাজিতে বাড়তি খরচ না করে অভাবিদের একটু হলেও হেল্প করি। 

মেহেদী ডিজাইন পিকচার

আজকে আর আগের দিন নাই! এখন গ্রাম বা শহর সবখানে ডিজাইন করে মেহেদী দেওয়া হয়ে থাকে! ঈদ আর বিয়ের জন্য মেহেদী ডিজাইন এর আইডিয়া খুজতে অনেকে মরিয়া হয়ে থাকে।

আজকের পোস্টে তাদের কাজ কিছুটা সহজ হয়ে যাবে আশা করা যায়। কারন এক পোস্টে পাবেনঃ

  1. বিয়ের হাতে মেহেদী ডিজাইন ছবি ডাউনলোড
  2. ঈদের জন্য মেহেদি ডিজাইন পিক Download 
  3. দেশি বিদেশি বিভিন্ন Mehedi Design
  4. বাচ্চাদের জন্য ডিজাইন ছবি 
  5. হাতে মেহেদি দেওয়ার আগে করনীয় 

নতুন মেহেদি ডিজাইন ২০২১ ডাউনলোড  ( Simple And Easy ) 

মেহেদী ডিজাইন ছবি ডাউনলোড
অনেকে আছে উপলক্ষ যায় হোক খুব বেশি আহামরি ভারি ভারি ডিজাইন এর চেয়ে সিম্পল লাইট মেহেদি ডিজাইন বেশি পছন্দ করে। তাদের জন্য এই সেকশনে তেমন ই কিছু সিম্পল সহজ কিছু ডিজাইন এর ছবি দিচ্ছি। হুবহু না হলেও একটা আইডিয়া পাবেন ছবি গুলো থেকে। 

মেহেদী ডিজাইন আইডিয়া ছবি

বছরের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উপলক্ষে মেয়েদের হাতে মেহেদির আলপনা উঠে। আর বিয়ে, ঈদ উপলক্ষে তো ছোট বড় সবাই ই কম বেশি হাতে মেহেদী ডিজাইন করে দিতে পছন্দ করে।

আগে যখন গ্রামে বিয়ে হতো তখন আজকের মত এতো অতো মেহেদীর ডিজাইন হইতো কিনা জানিনা। আমি দেখছি তখন আঙ্গুলে মোটা করে করে মেহেদি দিয়ে রং করে নিতো আর হাতের মাঝে এক টুকরো Mehedir ছাপ। 


মেহেদী ডিজাইন পিকচার ডাউনলোড ২০২১
হাতে মেহেদি দেওয়ার ১০ টি টিপস।
১। ভালো করে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিবেন
মেহেদি ডিজাইন
২। সতর্ক ভাবে মেহেদীর মাথা স্থাপন করুন
Mehedi Design idea
৩। ডিজাইন ফাইনাল করুন 
৪। হাতে দেওয়া মেহদি শুকাতে দিন।  
৫। স্প্রে করুন । 
৬। লেবু আর চিনির পানি দিতে পারেন। 
৭। স্প্রে বা লেবুর পানি শুকাতে দিন। 
৮। শুকিয়ে রেখে দিন। ( অনেক মেহেদি বেশি সময় রাখলে হাত ফুলে যায়, ঠোসা পরে যায় তাই বেশি সময় রেখে না দেওয়ায় ভালো। ন্যাচারাল মেহেদি হলে ভিন্ন কথা) 
৯। ধুয়ে ফেলুন।
১০ । এক্সট্রা ডিজাইন এড করতে পারেন। 

বিয়ের কনের জন্য নতুন মেহেদী ডিজাইন

বিয়েতে মেয়েরা সাজবে এটাই স্বাভাবিক। আর হাতে মেহেদি না থাকলে সাজা ঠিক সাজা হয়ে উঠে না। আর বিয়ের মেয়ের হাতের মেহেদী একটু গর্জিয়াস হওয়া চাই!
তেমন কিছু সুন্দর সুন্দর Mehedi Picture দিচ্ছি। ডিজাইনার কে দেখিয়ে বুঝাতে সহজ হবে আপনি কেমন ডিজাইন চান। 









বিয়ের সিম্পল মেহেদি ডিজাইন ছবি ২০২১ 

এখানে নতুন করে বিয়ের জন্য আলাদা করে ২০২১ সালের অধিনে দিলাম কেনো ? নতুন বছর নতুন ডিজাইন। আর ২০২০ এ আটকে থাকা অনেকে ২১সালে বিয়ে করতে পারে বলে ধারনা করছি।














বাচ্চাদের মেহেদী ডিজাইন আইডিয়া পিকচার


খালি মা খালা আর ভাবিরা হাত রাঙ্গাবে, বাচ্চারা ফাউ! 
এইটা হয় কখনো?  বিয়ে বা ঈদ সবার আগে তো বাচ্চাদের আনন্দ বেশি! ওদের হাত ও সুন্দর করে মেহেদি দিয়ে ডিজাইন করে সাজানো গেলে খারাপ হয় না মনে হয়!! 
বাচ্চাদের জন্য মেহেদি ডিজাইন আইডিয়া ছবি পাচ্ছেন এখানে। 











  • সহজ মেহেদী ডিজাইন ছবি 
  • মেহেদি ডিজাইন download
নারীদের জন্য মেহেদী ব্যবহার করা মুস্তাহাব (নেকির কাজ)। সুতরাং, এক্ষেত্রে অবহেলা বা অলসতা না করাই ভালো। এমনকি হাদিসের ভাষ্য থেকে বোঝা যায়, মেহেদী না দেওয়া মাকরুহ, যেমনটি অনেক আলিম বলেছেন।
.
আয়িশা (রা.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, একদিন এক নারী পর্দার আড়াল থেকে হাত বের করে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের দিকে একটি চিঠি ইশারা করলেন। নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজের হাতটি গুটিয়ে নিয়ে বললেন, ‘‘আমি বুঝতে পারছি না, এটি কোনো পুরুষের হাত নাকি কোনো নারীর হাত?’’ তখন সেই নারী বললেন, ‘‘বরং, এটা একজন নারীর হাত।’’ তখন রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, ‘‘যদি তুমি নারী হতে, তাহলে অবশ্যই মেহেদী দ্বারা তোমার হাতের নখগুলো বদলে দিতে।’’ [আবু দাউদ, আস-সুনান: ৪১৬৬; নাসায়ি, আস-সুনান: ৫০৮৯; হাদিসটি সহিহ]
.
❖ গোল্ড বা টিউব মেহেদী দেওয়ার বিধান:
.
গোল্ড মেহেদী বা টিউব মেহেদী ব্যবহার করা জায়েয। এবং এগুলো ব্যবহার করে প্রলেপ উঠিয়ে ফেলার পর অজু-গোসল সবই সহিহ হবে। কেননা এ মেহেদী লাগানোর পর শরীরে যে রঙ অবশিষ্ট থাকে—যার কোনো কোনোটিতে পরবর্তীতে আবরণের মতো উঠে—তা আমাদের জানামতে চামড়ায় পানি পৌঁছার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধক নয়। তাই এগুলো ব্যবহার করতে সমস্যা নেই। [শারহুল মুনয়া: ৪৮; রাদ্দুল মুহতার: ১/১৫৪; মাসিক আলকাউসার, এপ্রিল ২০১৬ সংখ্যা]
.
➤ তবে, বাজারের অনেক মেহেদীতে ক্ষতিকর কেমিকেল থাকে। তাই, বুঝে-শুনে সতর্কতার সাথে ব্যবহার করাই ভালো।
.
❖ নবিজির মেহেদী ব্যবহার:
.
আবু রিমসা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি এবং আমার পিতা রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নিকট এমন সময় আসলাম, যখন তিনি তাঁর দাড়িতে মেহেদী লাগিয়েছেন। [নাসায়ি, আস-সুনান: ৫০৮২; হাদিসটি সহিহ]
.
❖ নারীদের পায়ে মেহেদী ব্যবহারের বিধান:
.
অনেকে বলেন, যেহেতু নবিজি তাঁর দাড়িতে মেহেদী দিতেন, সেহেতু নারীদের জন্য পায়ে মেহেদী দেওয়া উচিত নয়। এই ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। নবিজি তো মাথায় তেলও ব্যবহার করতেন। অথচ আমরা অনেকে তো পায়ে তেল ব্যবহার করি। এগুলো আবেগী কথা-বার্তা। বরং, নারীরা পায়ে মেহেদী দিতে পারবে। এ ব্যাপারে আলিমগণ একমত। [ইবনু হাজার, ফাতহুল বারি: ১০/৩৬৭; শামি, রাদ্দুল মুহতার: ৬/৪২২]
.
❖ পুরুষদের মেহেদী ব্যবহার:
.
পুরুষের জন্য সাধারণভাবে মেহেদী ব্যবহার করা জায়েয নেই। এটাই বিশুদ্ধ কথা।
.
আবু হুরাইরা (রা.) হতে বর্ণিত; তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘‘পুরুষের সুগন্ধি এমন হবে, যার সুগন্ধ প্রকাশ পায় কিন্তু রঙ গোপন থাকে আর নারীর সুগন্ধি এমন হবে, যার রঙ প্রকাশ পায় কিন্তু সুগন্ধ গোপন থাকে।’’ [তিরমিযি, আস-সুনান: ২৭৮৭; হাদিসটি সহিহ]
.
➤ তবে, চিকিৎসার প্রয়োজনে পুরুষরা মেহেদী ব্যবহার করতে পারবে।
.
সালমা উম্মু রাফি’ (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবি সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম কখনো আঘাত পেলে বা কাঁটা বিদ্ধ হলে তিনি আহত স্থানে মেহেদী লাগাতেন। [ইবনু মাজাহ, আস-সুনান: ৩৫০২; হাদিসটি হাসান]
.
➤ পুরুষরা দাড়িতে মেহেদী লাগাতে পারবে।
.
আবু রিমসা (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি এবং আমার পিতা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নিকট এমন সময় আসলাম, যখন তিনি তাঁর দাড়িতে মেহেদী লাগিয়েছেন। [নাসায়ি, আস-সুনান: ৫০৮২; হাদিসটি সহিহ]
.
আবু যার (রাহ.) থেকে বর্ণিত। নবি সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘‘তোমরা যে সকল বস্তু দ্বারা বার্ধক্যজনিত শুভ্রতাকে পরিবর্তন করে থাক, সেগুলোর মধ্যে উত্তম হলো: মেহেদী এবং কাতাম।’’ [নাসায়ি, আস-সুনান: ৫০৭৭; হাদিসটি সহিহ]
.
#Tasbeeh

Powered by Blogger.