দুনিয়া ব্যবসা আখিরাত ভুলা বর্তমান মুসলিম সমাজ এর জন্য শিক্ষণীয় ইসলামিক কথা।

আপনার বিজনেস আইডল যেন জেফ বিজোস না হয়ে আব্দুর রহমান বিন আউফ ও উসমান গণী রদিআল্লাহু আনহুমা হন।



সাহাবীগণ রাঃ ব্যবসা করতেন কিন্তু তাদের দুনিয়া স্পর্শ করতো না। হালাল-হারামের ব্যাপারে কঠোর ছিলেন সবসময়, সন্দেহজনক যেকোনো কিছু থেকে দূরে থাকা তাদের (রাঃ) সুন্নাহ ছিলো। আজকাল আমরা ব্যবসা করি, কোনটা হালাল, কোনটা হারাম কিছুই বুঝিনা। আমাদের ব্যবসা হয়ে গেছে কেবল দুনিয়া কামাইয়ের উদ্দেশ্যে। অথচ হাদিসে এসেছে সৎ ব্যবসায়ী হাশরের ময়দানে শহীদের সাথে থাকবেন। আমরা ব্যবসা করি, তারাও করতেন। কিন্তু তারা কেমন ছিলেন?

কয়েকজন জেফ বিজোস, বিল গেইটস, জ্যাক মাকে পকেটে নিয়ে ঘুরতে পারার মত তৌফিক আব্দুর রহমান বিন আউফ রাঃ এর ছিলো। আর তিনি ইফতার করতে গিয়ে মুসআব বিন উমাইর রাঃ এর শাহাদাতের দৃশ্য কল্পনা করে কাঁদতে কাঁদতে না খেয়ে উঠে পড়তেন। বিলিওনিয়ার আব্দুর রহমান রাঃ কে দুনিয়া ধোঁকা দিতে পারেনি।

তারা ব্যবসা করতেন কিন্তু আমলে কোনো কমজোরি হতো না। সালাত, সিয়াম, কিয়াম, ক্বি-তাল করার পাশাপাশিই ব্যবসা করতেন।

আরেক বিলিওনিয়ার সাহাবী উসমান গণী রাঃ ও ব্যবসায়ী ছিলেন। উনার সম্পদের হিসাব বাদ দেই। চলুন কেবল একটি যুদ্ধে উনার দানের এমাউন্টটা হিসাব করি।

তাবুক যুদ্ধে উসমান গণী (রাঃ) পরপর পাঁচবারে হাওদাসহ ৯০০ উট, গদি ও পালান সহ ১০০ ঘোড়া, প্রায় সাড়ে ৫ কেজি ওযনের কাছাকাছি ১০০০ স্বর্ণমুদ্রা, প্রায় ২৯ কেজি ওযনের কাছাকাছি ২০০ উক্বিয়া রৌপ্য মুদ্রা দান করেন। স্বর্ণমুদ্রাগুলি যখন রসূল সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কোলের উপরে তিনি ঢেলে দেন, তখন রসূল সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সেগুলি উল্টে-পাল্টে বলতে থাকেন, مَا ضَرَّ عُثْمَانَ مَا فَعَلَ بَعْدَ الْيَوْمِ ‘আজকের দিনের পর কোন আমলই উসমানের কোন ক্ষতি করবে না’। (তিরমিজি)

এই বিপুল দানের জন্য তিনি مجهز جيش العسرة অর্থাৎ ‘তাবুক যুদ্ধের রসদ যোগানদাতা’ খেতাব প্রাপ্ত হন (ইবনু খালদূন)।

একটি উটের দাম যদি গড়ে ১০ লাখ ধরি ৯০০ উটের দাম ৯০ কোটি টাকা, ১০০ ঘোড়ার দাম গড়ে ৫ লাখ করে ধরলে ৫ কোটি টাকা, সাড়ে ৫ কেজি স্বর্ণমুদ্রার দাম প্রায় ৩০ কোটি টাকা, ২৯ কেজি রূপার দাম প্রায় ৩৫ কোটি টাকা।

মোট প্রায় ১৬০ কোটি টাকা! (এখানে আমি হিসাব করার সময় দাম অনেক কম ধরেছি। কারণ এত বেশি হিসাব করতে পারছি না)

তাহলে উসমান রাঃ কেবল তাবুকের যুদ্ধে দানই করেছিলেন ১৬০ কোটি টাকা!
আর আজকাল আমরা ব্যবসা করি কিন্তু ৫ টাকা দান করতে গিয়ে তিনবার ভাবি! সুবাহানআল্লাহ্!

যে দুজন সাহাবীর কথা বললাম তারা দুজনই 'আশারায়ে মুবাশ্বিরার অর্থাৎ জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ১০ জন সাহাবীর মধ্যে আছেন। রসূল সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যাদের জান্নাতের সার্টিফিকেট দিয়েছিলেন তাদের মধ্যে দুজন ছিলেন মাল্টি মিলিওনিয়ার! অর্থ তারা কামিয়েছেন যেমন আল্লাহর রাস্তায় বিলিয়েছেনও তেমন।

আপনি ব্যবসা করুন সমস্যা নেই। কিন্তু আপনার বিজনেস আইডল যেন জেফ বিজোস না হয়ে আব্দুর রহমান বিন আউফ ও উসমান গণী রদিআল্লাহু আনহুমা হন।
আল্লাহ্ তা'আলা আমাদের সাহাবাওয়ালা জিন্দেগি দান করুন।
Powered by Blogger.