ফর্সা হওয়ার উপায় । ছেলে মেয়েদের দ্রুত প্রাকৃতিক ও সহজ উপায়ে ত্বক ফর্সা করার উপায়

ফর্সা হওয়ার উপায়ঃ নতুক করে ফর্সা হওয়ার প্রাকৃতিক উপায় ও দ্রুত কিভাবে ফর্সা হওয়া যায় তার সমাধান

ফর্সা হওয়ার উপায় । ছেলে মেয়েদের দ্রুত প্রাকৃতিক ও  সহজ উপায়ে ত্বক ফর্সা করার উপায়

একটু ফর্সা হতে একটু বেশি সুন্দর হতে কে না চাই? সুন্দর হওয়ার উপায় জানতে কত চেষ্টা আমাদের।
আর আমরা তো মানুষ! আমাদের চাহিদার শেষ নেই। দুনিয়ার টপ সুন্দরিকে জিজ্ঞেস করে দেখুন সেও তার চেহারার নানা খুত নিয়ে পেরেশান!!  কীভাবে সে গুলো লুকাবে তার জন্য তার রীতিমত Beauty Team আছে। ফর্সা হওয়ার উপায় জানতে চেষ্টা না করলেও বাইরে আসার আগে ২/৩ ঘণ্টা মেকাপ করে তারপর আসতে হয়।  বুঝে নিন আমাদের চাহিদার অবস্থা হাহাহা।

আর বক বক না করে চলুন জেনে নিই 

প্রাকৃতিক উপায়ে সহজ  ও দ্রুত ফর্সা হওয়ার উপায় 


১. ফর্সা হওয়ার জন্য ডাবের পানি 

চিকেন পক্স হতে দেখেছেন  কখনও? চিকেন পক্স হলে দাবের পানি পান, গায়ে দেই কেন জানেন?
ডাবের পানি ত্বকের কাল দাগ ভাল করতে সাহায্য করে। আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে ডাবের পানি অনেক উপকারি। নিয়মিত ডাবের পানির পেস্ত তৈরি করে ইউজ করুন।
ফর্সা হতে না পারলেও ত্বক উজ্জল হবে আশা করি।

কীভাবে ডাবের পেস্ট তৈরি করবেন?

চলুন জেনে নিই ।

উপকরন ঃ ১। বেসন নিন এক বা দুই টেবিল চামচ পরিমান।
২।এক টেবিল চামচ  ডাব এর পানি বা নারিকেল এর দুধ নিন।

পদ্ধতিঃ
বেসন আর ডাবের পানি অথবা নারিকেলের দুধ মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন।
পেস্ট বানানোর ঝামেলায় জেতে না চাইলে শুধু ডাবের পানিও ইউজ করতে পারবেন। 

০২ ফর্সা হওয়ার খাবার কাচা  হলুদ ঃ 


ত্বকের যত্নে হলুদের ব্যাবহার কে না জানে?  কাচা হলুদ আর দুধ মিশিয়ে ত্বকে ব্যাবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে। ফর্সা হতে সাহায্য করবে।  শুধু কাচা হলুদ ও ব্যাবহার করতে পারেন।
ওহ দুঃখিত কাচা হলুদ আর দুধ ত্বকে ব্যাবহার করবেন না, খাবেন।
ত্বকে ব্যাবহার করবেন শুধু কাচা হলুদ। হিহিহি।


ডিমের কুসুম, লেবুর রস, মসুর ডাল এর গুড়ো।  
লেবুর রস
   

উপকরণ

প্রথমে আপনি  ১০ গ্রাম কাঁচা হলুদ নিন, চার বা পাচ  চা চামচ মধু এবং গরম দুধ নিন।
কি খেলে গায়ের রং ফর্সা হয় ? দুধ খেলে ।
কীভাবে খাবেন? 
এক গ্লাস গরম দুধ আর তার সাথে  আধা চা চামচ কাচা হলুদ  বাটা মিশিয়ে খেয়ে নিন।ঝাঝে সমস্যা হতে পারে। খেতে সমস্যা হলে এর সাথে মধু মিশিয়ে নিন। সমস্যা হবে না আর। বেশি না , সপ্তাহে এক বার খান। আশা করি ফলাফল দেখে আপনি অবাক হবেন।

সুন্দর হওয়ার উপায়


ফর্সা হতে ডিমের কুসুম ঃ

ফর্সা হতে ডিমের কুসুম ঃ
ফর্সা হতে চাইলে ডিমের কুসুম আপনাকে সাহায্য করতে পারে।
চলুন জানা যাক কুসুম ব্যাবহার করে ফর্সা হওয়ার উপায়।
কি কি লাগবে ?  
পেস্ট তৈরির পদ্ধতি ঃ
মসুর ডাল  এর বাটার সাথে ডিমের কুসুম মিশিয়ে শুকিয়ে রাখুন।  রোদে শুকাবেন।  যখন ব্যাবহার করবেন তখন এর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে নিবেন। প্রতিদিন রাতে মুখে লাগিয়ে রাখুন ( তিরিশ মিনিট )।তিরিশ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন।  

ত্বক  মুখ ফর্সা করার উপায়


 টকদই  ঃ 
দই খাইলে হবে না , ত্বক উজ্জ্বল করতে দই মুখে ব্যাবহার করতে হবে। দই মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন । 
কীভাবে পেস্ট বানাবেন?
দই আর মধু একেবারে ভাল ভাবে মিশিয়ে পেস্ট বানান। মুখে লাগানোর আগে মুখ ভাল করে ধুয়ে নিন। মুখ ধুয়ে মুখ দই মধুর পেস্ট মেখে রাখে দিন। কিছুক্ষন পর মুখ ধুয়ে ফেলুন।ত্বক উজ্জ্বল হবে। 

দুধের সর ঃ  ছেলেদের দ্রুত ফর্সা হওয়ার উপায় (মেয়েদের ও )

ফর্সা হতে চান আর দুধ ব্যাবহার করবেন না  তা কি হয়। 
ত্বক ফর্সা করতে  দুধের সর বেশ কার্যকর। দুধের সর বা মিক্ল ক্রিম মুখে লাগিয়ে সারারাত রেখে দিন। সকালে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

অ্যালোভেরা (ঘৃতকুমারী) ঃ

মেয়েরা অ্যালোভেরা  ঘৃতকুমারীর সাথে পরিচিত। ত্বকের যত্ন কিংবা চুলের যত্ন, অ্যালোভেরা  বা ঘৃতকুমারী বেশ কার্যকর। 
অ্যালোভেরা ত্বক এর ব্রাইট নেস বাড়াতে সাহায্য করে।
অ্যালোভেরা আর ল্যাভেন্ডার তেল মিশ্রন করে সারারাত মুখে লাগিয়ে রাখুন।

হাত পা ফর্সা করার উপায় গ্রিন টি ঃ 

মুখ কুচকাবেন না। গ্রিন টি আপনাকে আরেক্তু ফর্সা হতে হেল্প করলেও করতে পারে।  চলুন গ্রিন টি নিয়ে জানি।
নারিকেল এর তেল, লেবুর রস আর আলমণ্ড তেল মিশিয়ে পেস্ট বানান। 
সপ্তাহে বেশি না একবার ব্যাবহার করুন। কীভাবে ব্যাবহার করবেন তা জানতে গুগল এর সাহায্য নিন।

গোলাপ জলঃ

 আমার জানামতে প্রাচিন পারস্য ও ভারতে গোলাপ জল এর ব্যাবহার হত। ত্বকের যত্নে গোলাপ জল অনেক আগে থেকে ব্যাবহার হয়ে আসছে।
গোলাপ ফুলের পাপড়ি ছিঁড়ে একদিন পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।
প্রতিদিন মুখে ইউজ করুন। চাইলে এর সাথে নারিকেল তেল ইউজ করতে পারেন। তেল আর গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে ব্যাবহার করুন (মুখ ধুয়ে ফেলুন)
নারিকেল এর তেল আপনার ত্বক কে কোমল  করবে আর গোলাপ এর পানি ত্বক কে করবে উজ্জ্বল।

কিছু কথা।
দুনিয়ার সবাই ফর্সা হবে না। কাল মানেই অসুন্দর না । তবে নিজেকে আরেক্তু উজ্জ্বল করতে চেষ্টা করতে বাধা নেই।
কিন্তু ফর্সা হতে বাড়াবাড়ি করে বাজারের হাবিজাবি ক্রিম ইউজ করে নিজের ত্বকের ক্ষতি করবেন না। বাজারের ক্রিম যদি ৭ দিনে ফর্সা করতেই পারত তাহলে দুনিয়ার কেউ কাল থাকতো না।৭ দিন না ৭ বছর হলেও ক্রিম মেখে ফর্সা হয়ে যেত।
যা আছেন তাই ভাল, বলুন আলহামদুলিল্লাহ্‌।

  1. প্রাকৃতিকভাবে ফর্সা হওয়ার উপায় 
  2. রাতারাতি ফর্সা হওয়ার উপায়
  3. কালো থেকে ফর্সা হওয়ার উপায় 
  4. ফর্সা হওয়ার ক্রীম 
  5. ফর্সা হওয়ার খাবার
  6. ফর্সা হওয়ার ঔষধ
  7. স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়ার ক্রিম

Powered by Blogger.