নারীবাদী লেখা : নারীবাদী নিয়ে উক্তি কবিতা PDF বই ডাউনলোড ও তিতা কথা

ফেমিনিজম ক্যান্সারের চেয়ে ভয়ানক ঃ কেনো? 

কারনঃ ক্যান্সার একজনের দেহ ধ্বংস করলেও ফেমিনিজম তথা নারীবাদ পুরা পরিবার সমাজ ও দেশকে ধ্বংস করে। অস্থির করে তোলে পুরা স্থির অবস্থা কে। 


ফেমিনিস্ট নারীরা এখন এক তরফা সুযোগ ভোগ করতে করতে নারী রেপিস্টে পরিনত হয়েছে। স্বামীকে খুন করে বস্তায় করে নদীতে ফেলে অবৈধ কচি প্রেমিকের সাথে পালানো শিখাচ্ছে এই নারীবাদী শয়তান গুলো।যার কিছুটা খবর আমরা এখন দেখতে পায় নিউজে। 

নারীদের মনে সে নারী বলে হীনমন্যতা আছে আবার অপরদিকে সে নারী বলে অহমিকাও আছে! 

হীনমন্যতা কে লুকাতে অতিরিক্ত অহংকার করা অনেক নারীর স্বভাব।

একটু চিন্তা করুন, এই যে আপনারা সারাক্ষন ছেলেদের সাথে প্রতিযোগিতা করেই যাচ্ছেন ওদের মত হওয়ার চেষ্টা করছেন এটা কি থেকে? এটা হীনমন্যতা থেকে।

এই হীনমন্যতা ঢাকতে অনেক মেয়ে কি করে? অতিরিক্ত ফাকা গর্ব বোধের মেকি নাটক করে! 
নারী এই নারী সেই ব্লা ব্লা বুলি কপচায়!
আচ্ছা নারীরা এতো কিছু হলে আবার নতুন করে হাজার হাজার দাবি কেন? 

আচ্ছা আরেকটা কথা ভাবুন, কখনও কখনও কি দেখছেন খুব খারাপ ছেলেটাও প্রশ্ন করছে কেন মায়ের পায়ের নিচে জান্নাত কেন বাপের পায়ের নিচে না? 
কেন রাসুল(সা.) তিনবার মায়ের কথা বলছে আর একবার বাবার কথা তাও শেষে!!

কখনো ছেলেরা এসব প্রশ্ন করছে? দাবি করছে মানি না মানবো মা বাপ সমান সমান তাই অর্ধেক জান্নাত মায়ের পায়ের নিচে অর্ধেক জান্নাত বাবার পায়ের নিচে! এমন কথা কোন ছেলে বলছে শুনছেন কখনো?

দেখেন ইসলাম ছেলে মেয়ে উভয় কেই আলাদা আলাদা ময়দানে আলাদা আলাদা  সম্মান আলাদা আলাদা দায়িত্ব দিছে। আপনি এটা মানলে আপনার কল্যাণ না মানলে আপনার ই অকল্যাণ কেননা সত্য কে মিছিল দিয়ে কিংবা কিছু পতিতার লেখা প্রবন্ধ দিয়ে বা কিছু পতিতার দালালের বানানো নাটক দিয়ে পালটানো যায় না।
দিনশেষে সত্য সত্য ই। ছেলে মেয়ে এক না এক ছিলো না এক হবেও না।
এদের সম্মান এদের দায়িত্ব এদের ক্ষমতা আলাদা আলাদা।

সব ছেলে যেমন ধর্ষক না তেমনি সব মেয়েই উত্তম চরিত্রের না।
ছেলেদের মধ্যে যেমন ধর্ষক আছে তেমনি মেয়েদের মধ্যেও মাগির সংখ্যা কম না।


আপনি আপনার নারীত্ব বাদ দিয়ে যদি ছেলেদের মত হতে চান তাহলে নারিও হতে পারবেন না ছেলেও হতে পারবেন না, হবেন বেশ্যা। বাইরে হইতো ফুটানি দেখাতে পারবেন কিন্তু নিজের কাছে নিজের সত্য কে তো লুকাতে পারবেন না। আর লুকাতে না পারার কারনেই ফেমিনিস্ট এর মধ্যে আত্মহত্যার প্রবনতা বেশি।
সারাজীবন পুরুষ কে প্রতিপক্ষ আর শত্রু ভেবে আসা নারীও পুরুষের সঙ্গ পাওয়ার জন্য মরিয়া থাকে। শারিরিক সঙ্গের চাইতে মানসিক সঙ্গ পাবার আকাঙ্ক্ষা বেশি প্রবল। 
Powered by Blogger.