ফেক আইডি চেনার উপায় : ফেসবুক এর ভুয়া একাউন্ট কিভাবে বুঝবেন?

 ফেক আইডি চেনার উপায়ঃ কিভাবে ফেসবুক ফেক আইডি একাউন্ট চিনবেন? 

নতুন নতুন ফেক আইডির কারনে অনেকে মেইন আইডি চিনতে পারে না। অনেক সময় ফেক আইডিই হয়ে যায় রিয়েল আর রিয়েল আইডি হয় ফেক। এর ফলে অনেকে বিব্রত অবস্থায় পড়েন।আজকে দেখাবো ফেক আইডি চেনার কার্যকর ও বাস্তব কিছু টিপস ঃ

প্রথমে একটু দেখে নেয় মানুষ কেনো ফেক আইডি খুলে?

  1. নিজের আসল পরিচয় গোপন রেখে সোশ্যাল মিডিয়া ইউজ করতে
  2. আসল আইডির মালিক কে হেনস্তা করতে কিংবা খারাপ অবস্থায় ফেলতে
  3. হুমকি দিতে বা ব্ল্যাক মেল করতে
  4. বন্ধুদের সাথে ফান করতে
  5. টার্গেট করে মেয়ে কিংবা ছেলেদের ফাদে ফেলতে
  6. কারো তথ্য হাতিয়ে নিতে তার ফ্রেন্ড লিস্টে ঢুকতে  ইত্যাদি 

ফেক আইডি চেনার ১৪ টি উপায় ও কৌশল 

আইডির জন্মঃ

আইডি টি কবে খোলা হয়েছে দেখুন। আপনি যদি স্কুল বা কলেজ পড়ুয়া হোন এবং আপনার আর আপনার ফ্রেন্ড সার্কেল সবাই এক বছর আগে থেকেই ফেসবুক ইউজ করে থাকে তাহলে একদম নতুন আইডি যদি আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠায় তাহলে ধরে নিতে পারেন সেটা ফেক আইডি এবং সে আপনার লিস্টে ঢুকতে চাচ্ছে নজরদারি করতে কিংবা আপনাকে টেস্ট করতে চাচ্ছে।

প্রোফাইল পিকচারঃ

ফেক আইডি খুবই নির্ধারিত উদ্দেশ্য নিয়ে খুলা হয় তাই এসব আইডি তুলনা মূলক ভাবে সাজানো গোছান থাকে। প্রোফাইল পিকচার যদি তেমন হয় মানে স্বাভাবিক এর চাইতে বেশি পরিপাটি আর নজর কাড়া অথচ নতুন খোলা আইডি....তাহল বুঝেন সেই প্র পিক অন্য কারো আইডি থেকে নিয়ে ফেক আইডি খুলা হয়েছে।

ফ্রেন্ড লিস্টঃ

ঐ যে বললাম নির্ধারিত উদ্দেশ্য নিয়ে ফেক  একাউন্ট খোলা হয়, সেটাই এখানে আসবে। অনেকে আছে যারা জাস্ট ফেক একাউন্ট খুলতেই খুলে, কোন কাজ নাই। এরা কেউ কেউ ইচ্ছামত ফ্রেন্ড লিস্ট গ্রহন করে। আবার অনেকে একেবারেই ফ্রেন্ড গ্রহন করে না। আইডি ফাকা রাখে।
ফ্রেন্ড লিস্টে যদি ৩/৪ হাজার ফ্রেন্ড থাকে কিংবা ১০/২০ জন তাহলে বুঝতে পারেন সেটা ভুয়া আইডি।

দ্রুত ছবি আপলোড ঃ 

একই দিনে একাধিক বার প্রোফাইল পিকচার কিংবা সব মিলিয়ে যদি একাধিক ছবি আপলোড করে এবং পরে অনেক দিন আর ছবি আপলোড না করা হয় এমন আইডি যদি দেখেন তাহলে সেটিও ভুয়া আইডি হতে পারে। কারন যে দিন ছবি আপলোড করছে সেদিন সে আসলে ফেক কে রিয়েল ভাব দেওয়ার জন্যই একাধিক ছবি আপ দিছে যাতে মানুষ বুঝে রিয়েল আইডি। কিনতু যেহেতু সেটা ফেক আইডি, তাই রিয়েল আইডির মত স্বাভাবিক ইউজ হয় না তাই অনেকদিন গ্যাপ থাকে নতুন ছবি আপলোড করতে।আবার যেদিন আপলোড করবে সেদিন আগের মতই একই দিনে একাধিক ছবি আপলোড করবে মানে প্র পিক কাভার পিক ইত্যাদি সব চেঞ্জ করবে।

কমেন্টঃ 

রিয়েল আইডি তে পরিচত অনেকে থাকে ফলে পোস্টে অনেকে কমেন্ট করবে তুই তুকারি কিংবা পোস্ট এর টপিকের সাথে নিজেদের মধ্যে হওয়া কথা বা ঘটনা উল্লেখ করা ইত্যাদি এসব হবে কমেন্টে।
ফেক আইডি তে এমন কমেন্ট পাবেন না। পেলেও বুঝতে পারবেন কমেন্ট গুলো সাজানো।

একই আইডির কমেন্টঃ

অনেক সময় অনেকে ফেক আইডি কে রিয়েল ফ্লেভার দেয়ার জন্য একাধিক ফেক আইডি খুলে ফেক আইডির চক্র তৈরি করে। ধরুন ২/৩ টা মেয়ের আইডি খুলে আরেক আইডি তে বান্ধবি সেজে তুই তুকারি মানে স্বাভাবিক রিয়েল আইডি তে যেমন বন্ধুরা বান্ধবিরা কমেন্ট করে থাকে তেমন কমেন্ট করে করে রিয়েল ভাব আনতে চাই।
কমেন্ট গুলো দেখুন, দেখবেন একই লোকের কমেন্ট টা বুঝতে পারবেন। 
এবং সেই আইডি তে ঘুরে ফিরে সেম ঐ ২/৩ আইডিই কমেন্ট করে।

লাইক লিস্টঃ 

ফেক আইডি তে নিজেকে ভালো সাজানোর কিছু নেই তাই অনেকে ফেক একাউন্ট থেকে দুনিয়ার নোংরা সব পেজে লাইক দেই, গ্রুপে জয়েন থাকে।
এমন কিছু দেখলে বুঝবেন সেটা ফেক আইডি।
কেউ ই চাই না যে আইডি তে ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলি আছে সেই আইডি থেকে নোংরা কিছু করতে। মান সম্মান বাচানো আরকি!!

একটিভ ঃ

ফেক আইডি গুলো দীর্ঘদিন অফ্লাইনে থাকতে পারে। রিয়েল আইডিতে তো মানুষ এমনিই ঘুরতে হলেও আসে কিন্তু ফেক আইডির কাজ হয়ে গেলে বা ফেল করলে সেই আইডি পড়ে থাকে। ইউজ করা হয় না তেমন তাই একটিভ থাকে না।

ইউজার নেমঃ

ফেক আইডির ইউজার নেম আর আইডি নেম অনেক সময় অমিল থাকে কিংবা ইউজার নেম থাকেই না। 
আইডির নাম আনিকা কিন্তু ইউজার নেম নয়ন সেন!!
আসলে নয়ন সেন তার  নামের ইমেল দিয়ে আইডি খুলায় ইউজার নেম আসল নামে হয় গেছে আর ফেক আইডির নাম দিছে আনিকা!!

অতিরিক্ত ভাবঃ

শুরুতে বলছিলাম ভুয়া আইডির কোন না কোন টার্গেট থাকে। টার্গেট কে বুঝে বেশি ভাব মারা পোস্ট কিংবা About সেকশন ই লেখা থাকতে পারে।

আপনার সাথে বেশি মিলঃ

কেউ যদি শুধু আপনাকে টার্গেট করেই ফেক আইডি খুলে তাহলে সে চাইবে আপনাকে ইম্প্রেস করতে আর এই ইম্প্রেস করার একটা কৌশল হতে পারে আপনার পছন্দ অপছন্দ অনুযায়ী আইডি সাজানো।
যেমন আপনি যদি বই পড়ুয়া হোন তাহলে তার About এ বই পড়া রিলেটেড কথা, একাধিক পোস্ট বই পড়া নিয়ে কিংবা বই নিয়ে আহামরি আবেগ শো ইত্যাদি থাকতে পারে।

বিজ্ঞাপনঃ

অনেকে ফেক আইডি খুলে বিজ্ঞাপন দিতে কিংবা পেজের লাইক গ্রুপের মেম্বার বাড়াতে।এরা ফেক আইডি কে রিয়েল ফ্লেভার দিতে কেয়ার করে না। সহজেই বুঝতে পারবেন আইডি গুলো যে ফেক।

অতিরিক্ত কমেন্টঃ 

গ্রুপে আপনার সাথেই বেশি  বেশি কমেন্ট রিপ্লাই কিংবা আইডি তে প্রায় সব পোস্টেই কমেন্ট করে! অথচ সে আপনার অচেনা! 
বুঝুন সে ফেক আইডি।

নায়ক নায়িকার ছবিঃ
ফেক আইডি গুলো এদের ছবি ইউজ বেশি করে কিংবা বহুল ইউজ হওয়া ছবি। এসব অবশ্য দেখলেই বুঝা যায় ফেক। 


ফেক আইডির ক্ষেত্রে আপনার করনীয় কি?

আপনি যদি মেয়ে হোন তাহলে বলবো ফেক হোক বা রিয়েল আপনি ছেলেদের এভোয়েড করুন। নিজের পরিচিত কিংবা ক্লাস মেট হলেও। বিলিভ মি অপরিচত ফেক আইডি আপনার ১% ক্ষতি করতে পারবে কিনা সন্দেহ আছে কিন্তু আপনার ছেলে বন্ধুই আপনার বেশি ক্ষতি করতে পারবে।
এবং যত কেস আছে এই রিলেটেড তার সবি কিন্তু নিজের পরিচিত মানুষেই করে।
আপনার ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা ছেলে বন্ধু টি আপনার ছবি নিয়ে তাদের ছেলেদের প্রাইভেট গ্রুপে আপনার দেহের ছাপ ছপ নিয়ে গবেষণা করে। ছবি কেটে কেটে দেহের অংশ গুলো কে আলাদা করে।

এগুলো অপরিচিত ফেক আইডির মানুষ যত না করে তারচেয়ে বেশি করে আপনার  বন্ধু নামের ছেলে গুলো।
তাই আপনার উচিত ফ্রেন্ড লিস্ত ছেলে মুক্ত রাখা। শুধু এই একটা কাজ করতে পারলেই আপনি ৯৯.৯৮% নিরাপদ থেকে যাবেন।
আর একাউন্ট লক রাখবেন।
তবে ফ্রেন্ড লিস্টে ছেলে রেখে একাউন্ত লক করা আর ঘরে চোর রেখে দরজায় তালা লাগানো একই কথা।

আপনি ছবি দেওয়া বন্ধ করুন। আপনি নিজেও জানেন না এখন আর আগের ফটোশপ এর যুগ নাই, ডিফফেক এর যুগ। আপনার ছবিই আপনাকে ডুবাতে সক্ষম।

বহুত ফরাম আছে সিক্রেট সাইট আছে যেখানে আপনাদের ছবি ফাইল আকারে বিক্রি করা হয়।
আপনি ভাবছেন আপনার তো পোশাক ভাল এই ছবিতে কি অজা পাবে ছেলেরা তাই হইতো ওরা নিবে না। কিন্তু আপনি জানেন না অনেক ছেলের ফান্টাসি আছে শুধু মেয়েদের পা দেখা পা চাটা!!
অনেকের ফ্যান্টাসি আছে মেয়েদের নাক দেখে ডট ডট ডট।
আপনি এগুলোর ইউজ হয়া নোংরা মানুষ হতে চান কি?

না চাইলে ছবি দেয়া বন্ধ করুন।

 






Powered by Blogger.