বিড়ালের ছবি ও নামঃ সুইট কিউট সাদা কালো বিভিন্ন বিড়ালের পিক ছবি ও নামের তালিকা

 সুইট কিউট সাদা কালো বিভিন্ন বিড়ালের পিক ছবি ও নামের তালিকা ঃ বিড়ালের ফটো এবং কিছু মজার তথ্য 

যা যা পাবেন পোস্টেঃ 

  1. সাদা বিড়ালের পিক
  2. কালো বিড়ালের ছবি পিক
  3. বিড়ালের জানা অজানা তথ্য
  4. বিড়ালের ফানি পিকচার + ভিডিও
  5. কিউট কিছু নাম 

বিড়াল নিজে খুবই আদুরে একটা প্রানি আর ওর স্বভাব এর কারনে মানুষ ওদের আদর করেও বটে।
আমার কাছে বিড়ালের বাচ্চা আর কিউট মানুষের বাচ্চা দেখতে অনেকটা একই একই মনে হয়।
নরম নরম চেহারা আর চাহনি! 


আজকে বিড়ালের বেশ কিছু HQ পিকচার আপলোড করছি। ছবি গুলো কে উল্টা পালটা কাজে ইউজ কইরেন না এবং দেখে ভালো লাগলে মাশ আল্লাহ্‌ বলবেন যাতে বদ নজর না লাগে। 
শুধু বিড়াল না, কোন ভালো কিছু দেখলেই আমাদের উচিত মাশ আল্লাহ্‌ বলা কেননা আমরা জানিনা কখন নজর লেগে যাবে। 





















রিলেটেড পোস্ট ঃ











বিড়ালের জানা অজানা তথ্য 


বিড়ালের বৈজ্ঞানিক দ্বিপদী নাম ফেলিস ক্যাটাস।

2019 হিসাবে 71 স্ট্যান্ডার্ড বিড়াল জাতকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

ফেলিদা পরিবারের একমাত্র পোষা প্রাণী।

বিড়ালগুলি দৈর্ঘ্যে গড়ে 1 ফুট, 6 ইঞ্চি দৈর্ঘ্যে পৌঁছতে পারে।


বিড়াল গড়ে 8.5 থেকে 11 পাউন্ডের মধ্যে পৌঁছতে পারে।

কিছু প্রজাতির বিড়াল প্রতি ঘন্টা 30 মাইল গতিতে চলমান গতি অর্জন করতে পারে।

অনুমান করা হয় বিশ্বজুড়ে 200 থেকে 600 মিলিয়ন পোষা বিড়াল রয়েছে।

বিড়াল বিশ্বের দ্বিতীয় জনপ্রিয় গৃহপালিত পোষা প্রাণী।


একটি পুরুষ বিড়ালকে টম বলা হয়।

মহিলা বিড়ালকে রানী বা মলি বলা হয়।

একটি তরুণ বিড়ালকে বিড়ালছানা বলা হয়।

একদল বিড়ালকে ক্লোভার বলা হয়।


বিড়ালরা গড়ে 8 ফুট লাফিয়ে উঠতে পারে, যা তাদের দেহের গড় দৈর্ঘ্যের প্রায় ছয় গুণ।

বিড়ালরা প্রায় 70% সময় ঘুমাতে ব্যয় করে এবং এটি প্রতিদিন প্রায় 13 থেকে 16 ঘন্টা ব্যয় করে।

বিশ্বের দীর্ঘতম বিড়ালটির দৈর্ঘ্য 48.5 ইঞ্চি পর্যন্ত পৌঁছেছিল স্টিভি।


রেকর্ডে দীর্ঘতম বেঁচে থাকার বিড়ালটি ছিল ক্রিম পাফ। তিনি 38 বছর 3 দিন বেঁচে ছিলেন।

18 ই অক্টোবর, 1963 সালে প্রথম এবং একমাত্র বিড়াল মহাকাশে গিয়েছিল, তার নাম ছিল ফেলিচেট।

Powered by Blogger.