মেয়েদের হস্তমৈথুন : কিভাবে নারীরা হস্তমৈথুন করে?


 মেয়েদের হস্তমৈথুন : কিভাবে নারীরা হস্তমৈথুন  করে ছবি ভিডিও সহ বিস্তারিত। 


 যা যা পাবেনঃ

  1. মেয়েদের হস্তমৈথুন এর কথা
  2. মেয়েরা কি হস্তমৈথুন করে? কিভাবে করে?
  3. মেয়েদের হস্তমৈথুন কি স্বাস্থ্যসম্মত?
 হস্তমৈথুন  এর সাথে ছেলেরা কম বেশি পরিচিত কিন্তু মেয়েরাও হস্তমৈথুন  করে থাকে? করলে কিভাবে করে? হস্তমৈথুন  করা কি ছেলে মেয়েদের জন্য ভালো নাকি খারাপ?
ইসলাম ে বিষয়ে কি বলে?
আজকের পোস্টে এসব নিয়েই জানতে পারবেন। 

প্রথম প্রশ্ন ঃ মেয়েরা হস্তমৈথুন  করে কিনা? 

উত্তর হলো হ্যাঁ মেয়েরাও হস্তমৈথুন  করে থাকে। তবে মাথায় রাখা উচিত ওরা ছেলেদের মত অতটা সহজে এডিক্টেড হয় না আর অতো ঘন ঘন করেও না।
কিন্তু হ্যাঁ এটা সত্য মেয়েরাও এসব করে।

মেয়েরা কিভাবে হস্তমৈথুন  করে ?

এখানে আসলে মজার আর হাসির কথা আছে। ছেলেরা কিশোর বয়সে ফাজলামি করে মেয়েদের নিয়ে বেগুন শসা ইত্যাদি নিয়ে ইতরামি করে আসলে এটাই সত্য মেয়েরা এসব দিয়েই হস্তমৈথুন  করে। উপমহাদেশের মেয়েরা অবশ্য পেন্সিল বা এমন কিছু চিকন জাতীয় বস্তু দিয়ে কিংবা আঙ্গুল দিয়েই করে থাকে তবে বাইরের দেশের অতি পাকা মেয়েরা এরচেয়ে বড় মোটা কিছু দিয়েই করে!!

হস্তমৈথুন  কি উপকারি নাকি ক্ষতিকর? 

হস্তমৈথুন  আসলে ক্ষতিকর। এর কয়েকটা দিক দিয়ে আলাদা আলাদা ক্ষতি আছে। উপকার নেই বললেই চলে শুধু শারিরিক ক্ষণিক আনন্দ তৃপ্তি ছাড়া।
ছেলে বলুন কিংবা মেয়ে বা নারী সবার জন্যই হস্তমৈথুন  খারাপ এবং দেহের জন্য অপকারী। আর পাপ তো আছেই। 

হস্তমৈথুন  করলে কি কি ক্ষতি হতে পারে। যারা আগে এটা করতো তারা এখন কেমন কেমন রোগ ও সমস্যায় আছে এসব জানতে বাংলায় এই বিষয়ের ব্লগ মুক্ত বাতাসের খোঁজে ভিজিট করতে পারেন।

যারা হস্তমৈথুন  ছাড়তে পারছেন না, আসক্তি হয়ে গেছে তারাও লস্ট মোডেস্টি সাইট দেখতে পারেন অনেক কিছু পাবেন যা আপনাকে হেল্প করবে।

নারীরা হস্তমৈথুন  করে কেনো করে?

আমি এখানে নারী বলতে বিবাহিত মেয়েদের বুঝাচ্ছি। বিয়ের পরেও কেনো নারীরা স্বামী ছাড়া হস্তমৈথুন  করে?
আসলে এর উত্তর জটিল। অনেক সময় নারীরা স্বামীর বাজে খায়েসাত মিটাতে একাজ করে। মানে স্বামী চাই স্ত্রী হস্তমৈথুন  করুক আর সে তা দেখে আনন্দ নিবে!!
আবার স্বামী কাছে নেই কিন্তু শারিরিক উত্তেজনার কারনে অনেক নারীই হস্তমৈথুন  করেন।

হস্তমৈথুন  নিয়ে ইসলাম কি বলে?
একদম সোজা আর সহজ উত্তর হলো হস্তমৈথুন  ইসলামে হারাম।
কেন হারাম , কি কি কুফল তা জানতে নিচে কয়েকটা লিংক দিচ্ছি তা পড়ে ফেলুন আপনার ই উপকারে আসবে।

বিলিভ মি হস্তমৈথুন  আর পর্ণ খুব খারাপ নেশা। ইয়াবার নেশা কাটাতে সমাজ পরিবার আপনাকে হেল্প করতে পারলেও আপনি এই নেশা কাটাতে কারো হেল্প ও নিতে পারবেন না। ছাড়তে পারবেন না আবার সহ্যও করতে পারবেন না। নিজের চোখে নিজের নিঃশেষ হওয়া দেখা ছাড়া কিছুই করার থাকবে না।

নারীরা হস্তমৈথুন  ভিডিও দেখে? বা পর্ণ দেখে?

নারী টা খবিশ নাকি উত্তম চরিত্রের তার উপর নির্ভর করছে সে হস্তমৈথুন  ভিডিও দেখে কিনা। সব ছেলেই যেমন পর্ণ এডিক্টেড না তেমন সব মেয়েই হস্তমৈথুন  এ অভ্যস্ত না।

সহবাসের গল্প 

গার্লফ্রেন্ড কে নিয়ে আজ হোটেলে যাবো শারীরিক সম্পর্ক করতে l

প্রায় ১০ মিনিট এর মতো রাস্তার ধারে দাড়িয়ে আছি আমার গার্লফ্রেন্ড এর জন্য l কিন্তু ওর আসার কোনো খবর নেই l পকেট থেকে ফোন বের করে ওর নাম্বার ডাইল করে দিলাম ফোন l রিং হওয়ার সাথে রিচিভ করলো l

আমিঃ বাবু কোই তুমি? আমি কখন থেকে তোমার জন্য ওয়েট করছি l

গার্লফ্রেন্ডঃ এই তো সোনা চলে আসছি আর ২ মিনিট l

আমি ফোন রেখে ওর জন্য ওয়েট করতেছিলাম l

এবার পরিচিত হওয়া যাক" আমি আরিয়ান আরমান। অনার্স শেষ করলাম l বর্তমানে বেকারl আর আমার গার্লফ্রেন্ড এর নাম ফাতেমা আক্তার তন্নি l আমার গার্লফ্রেন্ড ক্লাস ১০ পড়ে l আমাদের বাসা ফেনী l ওদের বাসা কুমিল্লা l ফেসবুক এর মাধ্যমে আমাদের পরিচয় l এরপর কথা বার্তা থেকে ভালো লাগা বন্ধুত্ব এরপর আমরা দুজন দুজকে ভালোবেসে ফেলি l তন্নি আমাকে অনেক লাভ করে l আমিও ওকে লাভ করি খুব l আমাদের রিলেশন আজ ১ বছর এর থেকে ও বেশি l কিন্তু এতো ভালোবাসার পরেও মনে হলো আমাদের মধ্যে কিছু একটার অভাব l কিছু দিন যাবত বুঝতে পারলাম ওর সাথে আমার শাররীক সম্পর্ক করতে ইচ্ছা করছে l আমি ওকে বিষয়টা জানানোর পর তন্নি আমাকে না করে দিয়েছে l অনেক বুঝানোর পর তন্নি আমাকে হারিয়ে ফেলার ভয়ে অবশেষে রাজি হলো l আপনাদের সাথে কথা বলতে বলতে তন্নি এসে গেছে l

আমিঃ বাবু এসে গেছো? ( হাসি দিয়ে)

তন্নিঃ হুম সোনা l সোনা আমার না খুব ভয় করছে l

আমিঃ পাগলী ভয় কিসের? আমি তো আছি কোনো ভয় নেই l

এরপর তন্নি কে হোটেলের ভিতরে নিয়ে গেলাম l আগে থেকেই রুম বুক করা ছিলো l রুমে আগে থেকেই সব কিছু গুছানো ছিলো l

আমরা রুমে প্রবেশ করার পর দরজা বন্ধ করে দিলাম l

এরপর তন্নি কে কোলে তুলে নিলাম l তন্নি কে বিছানায় শুয়ে দিলাম l এরপর ওর দিকে একটু ঝুকে গিয়ে ওর কপালে একটা চুমু খেলাম l তন্নি আমার স্পশ পেয়ে কেপে উঠলো l আমি আমার শার্ট খুলে ফেললাম l এরপর তন্নি র মুখে গলায় বিভিন্ন জায়গায় কিচ করতে শুরু করে দিলাম l তন্নি আমার রেন্স পেন্স পেয়ে শক্ত করে আমাকে জড়িয়ে দরলো l এরপর আমরা দুজন মিলনে আবদ্ধ হলাম l আমি যখন তন্নি কে আমার নিজের ইচ্ছা মতো আদর করছিলাম আবার বিভিন্ন জায়গায় কামড় দিতে ছিলাম তন্নি ব্যথায় চোখ দিয়ে পানি বের হয়ে গেলো l কিন্তু সেই দিকে আমি খেয়াল না করেই নিজের কাজ চালিয়ে নিতে ছিলাম l এভাবে কিছক্ষন পর আমি দুর্বল হয়ে শুয়ে পড়লাম l তন্নি আমার বুকে মাথা দিয়ে আছে l

তন্নিঃ বাবু তুমি আমাকে আজ যা করলে এর জন্য যদি আমি বাচ্চার মা হয়ে যায় l

আমিঃ দুর কি বলছো এসব? ফিল কিনে দেবো তো যাওয়ার সময় l মনে করে খেয়ে নিও বেবি l

এভাবে আরো ১২ মিনিট এর মতো দুজন একসাথে শুয়ে ছিলাম l এরপর দুজন জামা কাপড় ঠিক করে নিলাম l তন্নি ব্যথার কারনে হাটতে ও পরছে না l এতটুকু বুঝলাম তন্নি আমার সাথে প্রথম শারীরিক সম্পর্ক করছে l আমি ওকে কোলে তুলে নিলাম l

তন্নিঃ এই এই আরমান কি করছো তুমি? লোকে দেখলে কি বলবে..?

আমিঃ যা বলার বলুক l চুপ করে থাকো l

আমি তন্নি কে কোলে করে গাড়ি পযন্ত নিয়ে গেলাম l এরপর গাড়িতে বসিয়ে দিলাম l গাড়ি ডাইভ করছিলাম হঠাৎ খেয়াল করলাম তন্নি আমার দিকে তাকিয়ে আছে এক নজরে l

আমিঃ কিছু বলবে বাবু..?

তন্নিঃ হুম! আচ্ছা আমরা বিয়ে কবে করছি বাবু l

আমিঃ এই তো আমি একটা চাকরি পেয়ে যায় l আর তুমি পরীক্ষাটা দিয়ে নাও l এরপর আমরা একসাথে সংসার করবো কেমন l

তন্নি আমার কথা শুনে লজ্জা পেয়ে নিচের দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসচিলো l

ফার্মেসি দোকানের সামনে গাড়ি ব্রেক করলাম l

গাড়ি থেকে নেমে ফার্মেসি দোকান থেকে ফিল কিনলাম l এরপর তন্নির হাতে দরিয়ে দিলাম l 
৫ মিনিট এর মধ্যে তন্নি দের বাসার সামনে এসে তন্নি কে বিদায় জানিয়ে আমি বাসায় চলে আসলাম l আজ খুব খুশি লাগছে ফাইনালি আমার প্লেন সমাপ্ত হলো l

এই দিকে তন্নি বাসার ভিতরে গিয়ে রুমে ঢুকে ওয়াশ রুমে গিয়ে পানি ছেড়ে দিয়ে অঝরে কান্না শুরু করে দিলো l কারণ তার মূল্যবান জিনিস টা তার ভালোবাসার মানুষ এর হাতে তুলে দিলো l প্রায় ১ ঘন্টার মতো পানিতে ভিজে গোসল করে ওয়াশ রুম থেকে বের হয়ে আয়নার সামনে দাড়ালো l " আমি এতো কিছু কেনো ভাবছি? আমাকে তো আরমান বিয়ে করবে l ওর তো এসব করার অধিকার আছে l তাহলে। আমি কেনো এসব ভাবছি? ধুর এসব আর ভাববো না l তন্নি আয়নার সামনে দাড়িয়ে এসব ভাব ছিলো l হঠাৎ আরমান এর কথা মনে পড়তেই লজ্জায় একদম লাল হয়ে গেলো l হঠাৎ বাইরে থেকে দরজায় ঠক ঠক আওয়াজ শুনে চমকে উঠলো l

এরপর.....

( আপনাদের সাড়া পেলে দ্বিতীয় পর্ব দেওয়া হবে)

#অভিনয়😥
পর্ব_০১

-আরিয়ান আরমান 

Powered by Blogger.