প্রাকৃতিক উপায়ে টেস্টোস্টেরন বাড়ানো যায় আসুন জানার চেষ্টা করিঃ মেইল সেক্স হরমোন টেস্টোস্টেরন সম্পর্কে জানি

প্রাকৃতিক উপায়ে টেস্টোস্টেরন বাড়ানো যায় আসুন জানার চেষ্টা করি | মেইল সেক্স হরমোন টেস্টোস্টেরন 

আমরা অনেকেই মেইল সেক্স হরমোন টেস্টোস্টেরন সম্পর্কে জানি। এটা আমাদের পুরুষালি বৈশিষ্ট্যের পিছনের প্রধান নিয়ামক। 
জিনগত বৈশিষ্ট্যের পাশাপাশি আপনি কতটা মাসকুলার হবেন তা নির্ণয় করে এটি৷ এর প্রচুর উপকারিতা রয়েছে। পেশীর বৃদ্ধি থেকে শুরু করে বৈবাহিক জীবন সবকিছুতে টেস্টোস্টেরনের ভূমিকা রয়েছে।

 কিভাবে প্রাকৃতিক উপায়ে টেস্টোস্টেরন বাড়ানো যায় আসুন জানার চেষ্টা করিঃ


১. সঠিক ডায়েট। টেস্টোস্টেরন আসে কোথা থেকে জানেন? কোলেস্টেরল থেকে! অনেকেই এই কোলেস্টেরলকে ভিলেন ভাবেন অথচ টেস্টোস্টেরন তৈরির মূল উপাদানই কোলেস্টেরল। 

তাই টেস্টোস্টেরন বাড়ানোর জন্য আমাদের ভাল চর্বিযুক্ত খাবার খেতে হবে। চর্বিকে ভয় পাবেন না। চর্বি তখন খারাপ যখন তা শর্করা তথা ভাত, রুটির সাথে খাওয়া হয়৷

এমনি চর্বি খারাপ না বরং দরকার। আপনার টেস্টোস্টেরন বাড়ানোর জন্য প্রাণিজ চর্বির প্রয়োজন রয়েছে। সুতরাং যদি টেস্টোস্টেরন বাড়াতে চান, চর্বি খান! গরুর মাংশ, ডিম, মাখন, ঘি, বাদাম, অলিভ অয়েল ইত্যাদি চর্বির ভাল উৎস।


২. কম শর্করা যুক্ত খাবার খাওয়া৷ ভাত, রুটি, আলু, চিনি, মিষ্টি ফল এগুলো সবই শর্করা এবং সবগুলোই চিনি। এগুলো অধিক পরিমাণে খাওয়ার কারণে আমাদের ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্স বাড়ে। 

ফলে টেস্টোস্টেরন কমে যায় এবং লিভার, ইস্ট্রোজেন (মহিলাদের হরমোন) কে মেটাবোলাইজ করতে না পারার কারণে ইস্ট্রোজেন বাড়ে।

 ঘরে অলস বসে একগাদা বিস্কুট চাবানো, চানাচুর খাওয়া, মিষ্টি খাওয়া, যখন তখন যা ইচ্ছা তা খাওয়া আর যাইহোক ম্যানলি না!


৩. High Intensity Interval Training (HIIT) করা। এটা আমাদের শরীরকে রীতিমত ঝাঁকি দেয়। প্রচুর পরিমাণ টেস্টোস্টেরন এবং গ্রোথ হরমোন রিলিজ করে।

 হিট মানে হলো প্রচুর স্পিডে কোনো ব্যায়াম করা তারপর কিছুক্ষণ রেস্ট নেয়া৷ এরপর আবার একই৷ এভাবে ৫-১০ মিনিটই যথেষ্ট।

 ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা ধরে আস্তে ধীরে ব্যায়াম করা আলফা মেইলের কাজ না এবং তার সেই সময় ও নেই, দরকারও নেই। হিট করুন, টেস্টোস্টেরন স্রোতের মত বাড়বে ইন শা আল্লাহ্। 
ইউটিউবে প্রচুর ভিডিও আছে এ নিয়ে।

৪. জীবন থেকে স্ট্রেস কমিয়ে ফেলা এবং পরিমিত ও সময়মত ঘুমানো। এটা নিয়ে আশা করি বিশেষ কিছু বলার প্রয়োজন নেই। 

স্ট্রেস আপনার শরীরে কর্টিসল বাড়াবে যা আপনার ম্যানলি ভাব কমিয়ে দেয়৷ রাত ১০ টার মধ্যেই ঘুমিয়ে যেতে পারা বেশ ভালো একটা গুণ এবং শরীরের জন্য দরকার।


৫. কিছু সাপ্লিমেন্ট যেমনঃ জিংক, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন ডি নেয়া৷ আমাদের দৈনন্দিন খাবারে জিংক যথাযথ পরিমাণে পাওয়া কঠিন।

তাই যারা পারেন এগুলো সাপ্লিমেন্ট আকারে নিতে পারেন। ভিটামিন ডি রোদের মধ্যে থাকে। দৈনিক ৩০ মিনিট শরীরে রোদ লাগান।


৬. শরীরের মেদ কমানো। বিশাল এক ভুড়ি নিয়ে হেলে দুলে চলা কোনো পুরুষালি বৈশিষ্ট্য হতে পারে না। পুরুষের হবে পেটানো শরীর।

বিরাট মাস্কুলার না হলেও তার পেশী সুগঠিত হবে এবং স্ট্যামিনা থাকবে। শরীরে চর্বি থাকবে যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই।

তাই অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়ে ফেলুন৷ কিটোজেনিক ডায়েট মেদ কমানোর জন্য বেশ উপযোগী। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পেইজের টাইমলাইন স্ক্রল করতে পারেন।


৭. নিয়মিত রোজা রাখা। অবাক করার বিষয় রোজা রাখলে টেস্টোস্টেরন বাড়ে। আপনি সোম, বৃহঃবারের সুন্নাহ রোজা রাখতে পারেন৷

 আবার দৈনিক ১৪-১৬ ঘন্টা পানি ব্যতীত কিছু না খেয়ে ইন্টারমিটেন্ট ফাস্টিং করতে পারেন৷ উভয়টিই আপনার টেস্টোস্টেরন ও গ্রোথ হরমোন বৃদ্ধির জন্য চমৎকার কাজ করে।

নিজেকে আরো পুরুষ করার জন্য এগুলো কয়েকটি সিম্পল টিপস। সহজেই যা অনুসরণ করা যায়। এই স্টেপগুলো ফলো করলে আপনার টেস্টোস্টেরন বাড়বে ইন শা আল্লাহ্। সুতরাং দেরি না করে জলদি শুরু করুন।
- Dr Shafayat Hossen Limon
Powered by Blogger.