বিকাশের ক্ষুদ্র ঋণ ও সুদের ব্যবসা আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধের ঘোষণা | ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবসা

বিকাশের  ক্ষুদ্র ঋণ ও সুদের ব্যবসা আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধের ঘোষণা এবং আমাদের নীরবতা 


টাইমলাইনে বারবার একটা নিউজ সামনে আসছে। কেন আসছে সেটা জানি না। হয়ত পাওয়ারফুল বুস্ট করা হয়েছে নিউজটা। যেন অধিক মানুষের কাছে নিউজের বার্তাটা যায়।

কিন্তু নিউজের বার্তাটা খুবই ভয়াবহ। আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধের ঘোষণা রয়েছে নিউজটাতে। হয়ত অনেকেই বুঝে ফেলেছেন আমি কী বলতে চাচ্ছি। বিকাশের মাধ্যমে গ্রাহকদেরকে ক্ষুদ্র ঋণ প্রদানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে ।

 আগে গ্রামীন ব্যাংক, ব্রাক সহ বিভিন্ন এনজিও ও ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান মাঠপর্যায়ে কর্মী নিয়োগ করে গ্রামে গ্রামে সুদী কিস্তির জাল বিছিয়েছে। 

আর এভাবে কত মানুষের রক্ত তারা চুষেছে তার কোন হিসেব নেই। নিজের চোখেই এমন রক্তচোষা কাহিনী দেখার সুযোগ হয়েছে।


সময় বদলেছে। প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। সবার হাতে হাতেই এখন স্মার্টফোন। 

মাঠপর্যায়ের সেই সুদি ঋণ ব্রাকের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বিকাশের হাত ধরে অনলাইনে বিস্তার করা হচ্ছে। 

আবার সুদের হারের ক্ষেত্রেও যেই সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে সাধারণদের কাছে সেটা খালি চোখে কম মনে হবে। কিন্তু এর সমষ্টিগত অংকটা অধিকাংশের দৃষ্টির বাইরেই থেকে যাবে।

 সবচেয়ে বড় কথা হল, যত কম পার্সেন্টই হোক সুদ সুদই। পুরো লেনদেনটাই এখানে হারাম। আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধ।


  • এসএমই লোন কি
  • ক্ষুদ্র ঋণ কিস্তি
  • ব্র্যাক ক্ষুদ্র ঋণ
  • গ্রামীণ ব্যাংক ক্ষুদ্র ঋণ

অতি সহজতা মানুষের অপ্রয়োজনীয় চাহিদাকে বাড়িয়ে দেয়। এই পদ্ধতি যদি সহজতর হয়, তাহলে দেখবেন ঠুনকো প্রয়োজনের সময়ও মানুষ এই সুদি ঋণ গ্রহণ করছে। 

সহজলভ্যতার দরুণ অপ্রয়োজনীয় চাহিদা তৈরি হবে। আর এর ফলে সুদি যোগানও বৃদ্ধি পাবে। সামারি হল, ব্যাপকহারে মানুষ সরাসরি সুদী কারবারে জড়িত হয়ে যাওয়া।


বর্তমান পুরো পৃথিবীর অর্থব্যবস্থাটাই সুদ নির্ভর। ইসলামী শাসন ব্যবস্থার মজবুত ভিত তৈরি হওয়া ছাড়া এই চক্র থেকে বেরিয়ে আসা মুশকিল। তবে স্থানীয় পর্যায়ে চেষ্টা করলে আমাদের অনেক কিছু করার আছে। 

আমি জানি সুদি প্রতিষ্ঠানগুলোর মত স্পেইস সমাজে আমরা অত সহজে পাব না। শত সীমাবদ্ধতা নিয়েও করজে হাসানার প্রজেক্ট ক্ষুদ্র সুদী ঋণ প্রতিরোধে ভাল একটা প্রাচীর হতে পারে। 

খুশির ব্যাপার হল, করজে হাসানা প্রজেক্ট নিয়ে স্বল্প পরিসরে হলেও মুসলিম সমাজে একটা ভাবনা শুরু হয়েছে। 

আলহামদুলিল্লাহ। এই জায়গাটায় ইসলাম পন্থীদের আরো এগিয়ে আসা দরকার।


মানুষের অর্থনৈতিক চাহিদা খুবই কমন ব্যাপার। যেই ব্যক্তি ক্ষুদ্র পরিমাণে হলেও কারো অর্থনৈতিক চাহিদা পূরণ করে, তার প্রতি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির দূর্বলতা কাজ করে।

 সমাজে করজে হাসানা প্রজেক্টের বাহন ধরে শক্তিশালী দাওয়াহ কাঠামো গড়ে তোলার সমূহ সম্ভাবনা আছে। তাছাড়া করজে হাসানা অনেক বড় একটি সওয়াবের কাজ। 

পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ তা'য়ালা অনেকভাবে করজে হাসার প্রতি উদ্বুদ্ধ করেছেন। করজে হাসানা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সুদের মূলে আঘাত করতে পারবে না। 

এর জন্য ইসলামের রাজনৈতিক শক্তির প্রয়োজন। দরকার কিতালের। কিন্তু স্থানীয় পর্যায়ে করজে হাসানা ক্ষুদ্র সুদী প্রজেক্টগুলোর বিরুদ্ধে কার্যকর ফলাফল দিবে নিশ্চিত।

- Iftekhar Sifat
Powered by Blogger.