নখের যত্ন ও নখ মরে যাওয়ার কারন এবং করনীয়ঃ নখ কালো হওয়া, ইনফেকশন হওয়া, নষ্ট হয়ে যাওয়া সব প্রশ্নের উত্তর

নখের যত্ন ও  নখ মরে যাওয়ার কারন এবং করনীয়ঃ নখের ইনফেকশন পায়ের নখের চিকিৎসা



নখের যত্ন ও  নখ মরে যাওয়ার কারন এবং করনীয়ঃ নখ কালো হওয়া, ইনফেকশন হওয়া, নষ্ট হয়ে যাওয়া সব প্রশ্নের উত্তর

বাংলাদেশের নখের সমস্যা কমন একটি সমস্যা। নখের কালো দাগ হওয়া, উঠে যাওয়া, ফাঙ্গাস আক্রমণ, কোণা ফোলা ইত্যাদি খুবই পরিচিত আমাদের সাথে।


চলুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে নখের যত্ন নিবেন এবং নখের বিভিন্ন সমস্যা দূর করবেন।


তবে জেনে রাখা ভাল আমাদের কথা শুধু কথায়। চিকিৎসার জন্য আপনাকে ডাক্তারের কাছে জেতে হবে। আপনার কোন ভুলের দায় আমাদের না। আমরা অনুরোধ করবো আপনি ডাক্তারের কাছে গিয়ে চিকিৎসা করাবেন। নইত বড় রোগ হতে পারে।

 

                                          Fungal Nail Infections




নখের সমস্যা গুলো ।


  • নখের ভেতরে ফাঁকাভাব তৈরি হওয়া। নখের মধ্যে আর ভিতরের অংশের মধ্যে ফাকা ফাকা ভাব তৈরি হবে।


  •  নখের দুই পাশের কোনা ভেঙে যাওয়া। কিংবা নখ উঠলেও ভিতরের দিকে ঢুকে যাওয়ার মত হবে।

  •  নখের সম্মুখভাগ কিংবা নখের অর্ধেক অংশ ফ্যাকাশে হলুদ হয়ে যাওয়া। এটা দেখলেই বুঝতে পারবেন আপনার নখে ফাঙ্গাস আক্রমণ করেছে । ভয়ের কিছু নেই। চিকিৎসা কোরান ভাল হয়ে যাবে।


  •  নখের চারপাশের ত্বক ফোলা ও খসখসে হয়ে ওঠা। ফোলা অংশে মাঝে মাঝে ব্যথা অনুভব করতে পারেন।

  •  বারংবার নখ ভেঙে যাওয়া।

  •  নখে বাজে গন্ধ দেখা দেওয়া। নখের যেই অংশ ভেঙ্গে গেছে সেখান থেকে বাজে গন্ধ বের হতে পারে।

  •  নখে ব্যথাভাব দেখা দেওয়া। আগেই বলেছি নখে কিছুটা ব্যথা ব্যথা লাগতে পারে।


এই লক্ষন গুলো যদি আপনার থাকে তাহলে আপনার নখে সমস্যা আছে।


কীভাবে নখের যত্ন নিবেন এবং এসব সমস্যা এড়িয়ে চলবেন ?

  1. থালাবাসন ধোয়ার সময় হাতে প্লাস্টিক কিংবা রাবারের তৈরি গ্লভস পরে নিতে হবে। কম দামি বাজে গ্লাভস না নিয়ে একবারে ভাল দেখে নিবেন। গ্লাভস কে পরিস্কার রাখবেন , শুকনা রাখার চেষ্টা করবেন।
  2.  পানি ব্যবহারের পর দ্রুত হাত ও পা শুকিয়ে নিতে হবে। ভিজা সেঁতসেঁতে অবস্থায় বেশিক্ষন থাকবেন না।


  1.  কমদামী ও ননব্র্যান্ডেড নেইলপলিশ ব্যবহার এড়িয়ে যেতে হবে। সবচেয়ে ভাল হয়  নেইলপলিশ একদম ইউজ না করলেই। নেইলপলিশ এ কোন উপকার নেই বরং সব অপকার। অজু করতে পারবেন না, নখের সমস্যা, টাকার অপচয় ইত্যাদি। তাই নেইলপলিশ ইউজ বন্ধ করে দেন।


নখের যত্ন বা নখকুনি ভাল করার উপায়।


০১। নারিকেল তেল ঃ 
গোসলের আগে নখের যে অংশে ব্যথা সে অংশের চারপাশে ও নখে নারিকেল তেল মাখিয়ে রাখুন।  পনেরো বা বিশ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। আরাম পাবেন।

০২। বেকিং সোডা ঃ 

প্রথমে ঠাণ্ডা পানিতে শ্যাম্পু দিয়ে আপনার পা ধুয়ে ফেলুন। গামছা দিয়ে পা মুছে আপনার পায়ের যেখানে নখকুনি সেখানে সোডা আর পানি দিয়ে তৈরি করা পেস্ট ১৫/২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। ১৫/২০ মিনিট পর ভাল করে ধুয়ে ফেলুন।

০৩ । অলিভ অয়েলঃ

অলিভ অয়েলও আপনার নখকুনি সারিয়ে তুলতে ও এর যন্ত্রণা কমাতে সাহায্য করে| এছাড়া নিয়মিত অলিভ অয়েল নখে ও তার চারপাশে লাগালে এই ধরনের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়| তাই নখের যত্নে নিয়মিত অলিভ অয়েল ইউজ করুন।
উপকরণঃ দুই চামচ অলিভ অয়েল, দুই চামচ পাতিলেবুর রস।
কীভাবে ব্যাবহার করবেন ?
অলিভ অয়েল অ লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট এর মত তৈরি করুন। নখ অ এর চারপাশে   হালকা করে ম্যাসাজ করুন। নিয়মিত ম্যাসাজ করলে আরাম পাবেন। 

  1. টুথপেস্ট দিয়ে নখ বড় করার উপায় হাতের নখ বড় করার সহজ উপায় হাতের নখ দ্রুত বড় করার উপায় নখ বড় করার সবচেয়ে সহজ উপায় নখ লম্বা করার সহজ উপায় হাতের নখ বড় করার ঘরোয়া উপায় নখ বড় করার ঘরোয়া পদ্ধতি নখ শক্ত করার উপায়
Powered by Blogger.